মিয়ানমারের ওপর ‘ইইউ’ এর বাণিজ্যিক নিষেধাজ্ঞা

ইউরোপীয় ইউনিয়নের তিনজন কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলে বার্তা সংস্থা থমসন রয়টার্স জানিয়েছে, রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে বলপূর্বক বাস্তুচ্যুত করার ঘটনায় মিয়ানমারের ওপর বাণিজ্যিক নিষেধাজ্ঞা আরোপের বিষয়টি বিবেচনা করছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)।

ইউরোপীয় কমিশনে গত মাসে মিয়ানমারের বাণিজ্য সুবিধাগুলো পর্যালোচনা করতে বলা হয়। পর্যালোচনা শেষে নিষেধাজ্ঞা আরোপ পর্যন্ত ছয় মাস সময় লেগে যেতে পারে। এর মধ্যে মিয়ানমার যদি মানবাধিকার ও গণতান্ত্রিক লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে আশানুরূপ কিছু করে দেখাতে পারে, তবে ইউরোপীয় ইউনিয়নের এসব ব্যাপারে নীতিগত সিদ্ধান্তে পরিবর্তনও আসতে পারে।

তবে এই নিষেধাজ্ঞার ফলে দেশটির লাভজনক পোশাকশিল্পে ধস নামবে, মিয়ানমারের বহু পোশাককর্মী তাঁদের চাকরি হারাবেন।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাণিজ্যিক নীতিনির্ধারণে দায়িত্বপ্রাপ্ত ইউরোপীয় কমিশনের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা রয়টার্সকে বলেন, ‘নিষেধাজ্ঞার কারণে (ক্ষতিগ্রস্ত হতে যাওয়া) বিপুলসংখ্যক জনগোষ্ঠীর স্বার্থের বিষয়টিও দেখছি আমরা। কিন্তু আমরা সেনাবাহিনীর অভিযানে গণহত্যার অভিযোগসংবলিত জাতিসংঘের প্রতিবেদন উপেক্ষা করতে পারি না।

নকশী টিভি'র সকল অনুষ্ঠান সরাসরি দেখতে ক্লিক করুনঃ সরাসরি সম্প্রচার

 
ইউটিউবে নকশী টিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন নকশী টিভির ইউটিউব চ্যানেল

সর্বশেষ আপডেট সংবাদ

ফাইনাল ফিটিং | কমেডি নাটক

Free Hit Counter