মুজিববর্ষের কর্মসূচি সংক্ষিপ্ত করার সিদ্ধান্ত, আপাতত আসছেন না বিদেশি অতিথিরা

করোনাভাইরাসের কারণে জনস্বাস্থ্যের কথা বিবেচনা করে মুজিববর্ষ পালনের সংক্ষিপ্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। তারই প্রেক্ষিতে হচ্ছে না আগামী ১৭ মার্চের প্যারেড গ্রাউন্ডের অনুষ্ঠানও।

রোববার রাতে রাজধানীর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান মুজিববর্ষ উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী।

তিনি আরও জানায়, জনস্বাস্থ্য বিবেচনায় মুজিব বর্ষের ১৭ মার্চের আয়োজন সীমিত করা হয়েছে। যতটা সম্ভব জনসমাগম পরিহার করে উদযাপন চলবে দেশব্যাপী। অন্যান্য কর্মসূচি চলমান থাকবে। তিনি আরো জানান, আপাতত আসছেন না বিদেশি অতিথিরা। বছরব্যাপী ছোট পরিসরে কর্মসূচি পালন করা হবে।

কামাল অবদুল নাসের চৌধুরী বলেন, আজ সন্ধ্যায় (৮ মার্চ রবিবার) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গণভবনে অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী জাতীয় উদযাপন কমিটির এক সভায় বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়। এতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছোট কন্যা শেখ রেহানাসহ জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন জাতীয় কমিটির সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনগণের স্বাস্থ্য, নিরাপত্তা ও কষ্টের কথা চিন্তা করে জানান, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সাধারণ মানুষের কল্যাণের জন্য কাজ করে গেছেন। জনগণের অসুবিধা হতে পারে এমন কথা বিবেচনা করেই মুজিববর্ষের মূল উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পরিবর্তন আনা হচ্ছে। পরবর্তী সময়ে তা জানানো হবে।
তিনি বলেন, মুজিববর্ষের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি ১৭ মার্চ ব্যাপক জনসমাবেশে হবে না। জাতির পিতার প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর জন্য ধানমন্ডির বত্রিশ নম্বর ও টুঙ্গিপাড়ায় যে অনুষ্ঠানমালা রয়েছে তা অনুষ্ঠিত হবে। গণমাধ্যমে প্রচার ও প্রকাশনাসহ যেসব পরিকল্পনা রয়েছে তা বছরব্যাপী অব্যাহত থাকবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, জনসমাগম নিরুৎসাহিত এবং জনগণের মঙ্গলের কথা বিবেচনা করে যেভাবে কার্যক্রম পরিচালনা করা যায়, সেভাবে অনুষ্ঠান পরিচালনা করার নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

নকশী টিভি'র সকল অনুষ্ঠান সরাসরি দেখতে ক্লিক করুনঃ সরাসরি সম্প্রচার

ইউটিউবে নকশী টিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন নকশী টিভির ইউটিউব চ্যানেল

মন্তব্য যোগ করুন

Your email address will not be published.