গ্রাহকেরা গত ১৩ মাসে ২২২ কোটি বার কল কল ড্রপের শিকার

গত রোববার বাণিজ্যমন্ত্রী সংসদে কল ড্রপ নিয়ে কথা ক্ষোভ প্রকাশের পর সোমবার বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) প্রকৃত অবস্থান জানতে মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর কাছে চিঠি পাঠিয়েছে। আগামী পাঁচ কর্মদিবসের মধ্য চিঠির উত্তর দিতে বলা হয়েছে।

বিটিআরসির পাঠানো চিঠিতে বলা হয়, সাম্প্রতিক সময়ে কল ড্রপ-সংক্রান্ত অভিযোগ অব্যাহতভাবে বাড়ছে। বিষয়টি নিয়ে জাতীয় সংসদেও আলোচনা হয়েছে। চিঠিতে আরও বলা হয়, কল ড্রপের পরিমাণ বিটিআরসির নির্ধারিত সীমার মধ্যে (২ শতাংশ) থাকা আবশ্যক।

দেশের মোবাইল ফোনের গ্রাহকেরা গত ১৩ মাসে ২২২ কোটি বার কথার মাঝে কল কেটে যাওয়া বা কল ড্রপের শিকার হয়েছেন। যা গ্রাহকসংখ্যার অনুপাতে প্রতিটি অপারেটরের ক্ষেত্রেই সংখ্যার দিক দিয়ে অনেক বড় অংকের।

অপারেটরদের জমা দেয়া প্রতিবেদনে কল ড্রপ নির্ধারিত সীমার মধ্যে রয়েছে দাবি করলেও গ্রাহক পর্যায়ে অনেক অভিযোগ আছে। এ ছাড়া কোনো কোনো অপারেটরের নেটওয়ার্কে একটি কলে চার থেকে পাঁচবার কল ড্রপ হয় বলে অভিযোগ রয়েছে।

রোববার জাতীয় সংসদের অধিবেশনে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ কল ড্রপ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। গ্রামীণফোনে একবার কথা শেষ করতে চার-পাঁচবার কল করতে হয়। এটা হতে পারে না।

এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে হবে। কল ড্রপের ঘটনা যাতে না ঘটে, বাণিজ্যমন্ত্রী সে জন্য টেলিযোগাযোগমন্ত্রীকে গ্রামীণ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ জানান। ইদানীং দেখা যায় আমরা যারা গ্রামীণফোন ব্যবহার করি, তাদের প্রতিটি কলে কল ড্রপ হয়। একেকটি কলে ৩, ৪, ৫ বারও ড্রপ হয়।

নকশী টিভি'র সকল অনুষ্ঠান সরাসরি দেখতে ক্লিক করুনঃ সরাসরি সম্প্রচার

ইউটিউবে নকশী টিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন নকশী টিভির ইউটিউব চ্যানেল

সাম্প্রতিক খবর